দর্পণ ডেস্ক : কাতার বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব প্রায় শেষ হওয়ার পথে। ২০২২ কাতার বিশ্বকাপ শুরু হতে আর মাত্র ১ বছরের মতো বাকি। এরমধ্যে ১৩টি দল আনুষ্ঠানিকভাবে বাছাইপর্ব পেরিয়ে গেছে। বাকি জায়গাগুলোর জন্য চলছে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই। চলতি আন্তর্জাতিক বিরতির মাঝেই প্লে-অফের লাইনআপও প্রায় চূড়ান্ত হয়ে গেছে।
বিশ্বকাপের মূল পর্বে এরইমধ্যে জায়গা করে নেয়া দলগুলো হলো- ব্রাজিল, আর্জেন্টিনা, জার্মানি, সার্বিয়া, ডেনমার্ক, স্পেন, নেদারল্যান্ডস, সুইজারল্যান্ড, ক্রোয়েশিয়া, ফ্রান্স, ইংল্যান্ড, বেলজিয়াম এবং স্বাগতিক হিসেবে সরাসরি সুযোগ পাওয়া কাতার। কাতার এবারই প্রথম বিশ্বকাপে অংশ নিচ্ছে। যদিও তাদের প্রতিবেশী কুয়েত, সৌদি আরব এবং ইরান আরও আগেই নাম লিখিয়েছে। ২০২২ সালের ১ এপ্রিল বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বের ড্র অনুষ্ঠিত হবে এবং সেখানে বাছাই পেরিয়ে আসা ৩২টি দলকে ভিন্ন ভিন্ন গ্রুপে ভাগ করা হবে। এখনও বাকি ১৯টি জায়গা খালি পড়ে আছে। এই জায়গাগুলোর জন্য লড়াই পরের বছর জুন পর্যন্ত চলবে।
যাদের বিশ্বকাপ শেষ-
কাতার বিশ্বকাপে বড় বড় অনেক দলের খেলা হচ্ছে না। বাছাইয়ে নিচের দিকে থাকা এসব দলের মধ্যে আছে- নরওয়ে, আইভরিকোষ্ট, গ্যাবন, মন্টেনিগ্রো, স্লোভেনিয়া, আর্মেনিয়া, ভেনেজুয়েলা। বাছাই শেষে এই তালিকায় আরও অনেক দলের নাম যুক্ত হবে।
৩২ দলকে ৮টি গ্রুপে ভাগ করা হবে। প্রতি গ্রুপে থাকবে ৪টি করে দল। গ্রুপ পর্বে প্রতিদিন চারটি করে ম্যাচ খেলা হবে। এভাবে চলবে ১২ দিন। প্রতি গ্রুপের শীর্ষ দুই দল যাবে শেষ ষোলোয়। বিশ্বকাপের সূচি নিচে দেওয়া হলো:

গ্রুপ পর্ব: ২১ নভেম্বর-২ ডিসেম্বর
শেষ ষোলো: ৩-৬ ডিসেম্বর
কোয়ার্টার ফাইনাল: ৯/১০ ডিসেম্বর
সেমিফাইনাল: ১৩/১৪ ডিসেম্বর
ফাইনাল: ১৮ ডিসেম্বর

বাছাইপর্বের বর্তমান অবস্থা-

ইউরোপ :
ইউরোপীয় অঞ্চলের বাছাইপর্বে এরইমধ্যে ১০টি দল বিশ্বকাপ নিশ্চিত করে ফেলেছে। গত অক্টোবরে সবার আগে টিকিট পেয়েছে চারবারের বিশ্বকাপজয়ী জার্মানি। একদিন পর নাম লিখিয়েছে ডেনমার্ক। তবে ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়ন ইতালি, পর্তুগাল, সুইডেন, স্কটল্যান্ড, রাশিয়া, ওয়েলস এবং অস্ট্রিয়াকে প্লে-অফের বৈতরণী পেরিয়ে মূল পর্বে যেতে হবে।
দক্ষিণ আমেরিকা :
এই অঞ্চল থেকে শুধু ব্রাজিল এবং আর্জেন্টিনা মূল পর্ব নিশ্চিত করেছে। এই নভেম্বরের ১১ তারিখে কলম্বিয়াকে হারিয়ে অঞ্চলের বাছাইয়ে শীর্ষে থেকে চতুর্থ দল হিসেবে কাতারের টিকিট পাকাপাকি করে রেখেছে পাঁচবারের বিশ্বকাপজয়ী ব্রাজিল। এরপর চলতি সপ্তাহে ব্রাজিলের সঙ্গে ড্র করেও দুইয়ে থেকে জায়গা পাকা করেছে দুইবারের শিরোপাজয়ী আর্জেন্টিনা। বাকি দুই জায়গা প্রায় দখল করে রেখেছে ইকুয়েডর এবং কলম্বিয়া। এখন যা পরিস্থিতি তাতে পেরু যাচ্ছে প্লে-অফে।
আফ্রিকা :
আফ্রিকার বাছাইপর্ব বেশ জমে উঠেছে। কারণ এখন পর্যন্ত এই অঞ্চল থেকে কোনো দলই মূল পর্ব নিশ্চিত করতে পারেনি। যদিও ১০টি দল অন্তত প্লে-অফে খেলার যোগ্যতা অর্জন করে রেখেছে। এই মহাদেশ থেকে পাঁচটি জায়গা দখলের জন্য লড়াই হচ্ছে মূলত আলজেরিয়া, তিউনিসিয়া, নাইজেরিয়া, ক্যামেরুন, মালি, মিশর, ঘানা, সেনেগাল, মরক্কো এবং কঙ্গোর মধ্যে।
এশিয়া :
এশিয়া থেকে একমাত্র আয়োজক দেশ কাতার এখন পর্যন্ত বিশ্বকাপে নিশ্চিত। তবে গ্রুপ ‘এ’ থেকে ইরানও প্রায় টিকিট কেটে ফেলার পথে। তিনে থাকা সংযুক্ত আরব আমিরাত এবং চারে থাকা লেবাননের আশাও ভালোভাবেই টিকে আছে। ১২ দল এশিয়ার বাছাইপর্বে দুই গ্রুপে ভাগ হয়ে হোম-অ্যাওয়ে রাউন্ড-রবিন পদ্ধতিতে খেলছে। প্রতি গ্রুপের শীর্ষ দুই দল সরাসরি বিশ্বকাপে জায়গা করে নেবে। এরপর তৃতীয় স্থানে থাকা দলগুলো যাবে চতুর্থ রাউন্ডে।
উত্তর আমেরিকা, মধ্য আমেরিকা, ক্যারিবিয়ান (কনকাকাফ) :
৩টি দল এখান থেকে বাছাই পর্ব পেরোতে পারলে সরাসরি মূল পর্বে খেলার সুযোগ পাবে। প্লে-অফ পেরিয়ে আসবে বাকি দল। এই অঞ্চলে এখন বাছাইয়ের তৃতীয় ও শেষ রাউন্ডের খেলা চলছে। প্রথম ৩টি জায়গা দখল করে আছে যথাক্রমে কানাডা, যুক্তরাষ্ট্র এবং মেক্সিকো। প্লে-অফ স্পটে আছে পানাম।
ওশেনিয়া :
করোনা মহামারির কারণে ওশেনিয়া অঞ্চলের বাছাইপর্ব সবচেয়ে বেশি ক্ষতির মুখে পড়েছে। এই অঞ্চলের পুরো বাছাইপর্ব আগামী বছরের মার্চের জন্য নির্ধারণ করে রাখা হয়েছে। সবগুলো ম্যাচ হবে কাতারে। কিন্তু ওই অঞ্চলের ১১টি দলই তাতে অংশ নেবে কিনা তা এখনও অনিশ্চিত। এই মহাদেশ থেকে সবচেয়ে এগিয়ে আছে নিউজিল্যান্ড। এখান থেকে বাছাইয়ে অংশ নেবে- সলোমন দ্বীপপুঞ্জ, নিউ কালেদোনিয়া, তাহিতি, ফিজি, ভানুয়াতু, পাপুয়া নিউগিনি, আমেরিকান সামোয়া, টোঙ্গা এবং কুক দ্বীপপুঞ্জ।
আন্তঃমহাদেশীয় প্লে-অফ :
এশিয়া, কনকাকাফ, ওশেনিয়া এবং দক্ষিণ আমেরিকা অঞ্চল থেকে ১টি করে দল প্লে-অফে অংশ নেবে। এই দলগুলো লড়বে ২টি জায়গার জন্য। ম্যাচগুলো ২০২২ সালের জুনে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে