দর্পণ ডেস্ক : দীর্ঘদিন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ার ঘাটতি পূরণে সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। শনিবার দুপুরে চাঁদপুর জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে সরকারি কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিয়ম শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা জানান তিনি।
শিক্ষামন্ত্রী বলেন, করোনার কারণে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকলেও পাঠদান বন্ধ থাকেনি। শ্রেণিকক্ষে পাঠদান বন্ধ থাকলেও টেলিভিশন ও অনলাইনের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের পাঠদান অব্যাহত ছিলো। তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের একটি অংশের টেলিভিশন ও অনলাইন ব্যবহারের সুযোগ না থাকায় অ্যাসাইনমেন্টের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এর মাধ্যমে সর্বোচ্চসংখ্যক শিক্ষার্থীদের কাছে পৌঁছানো গেছে বলেও জানান শিক্ষামন্ত্রী। দীপু মনি বলেন, খুব স্বাভাবিকভাবে আমরা ষোলআনা শ্রেণিকক্ষে পাঠদানের বিকল্প করতে পারিনি। কোথাও কোথাও তো কিছু ঘাটতি রয়েছেই। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার পরে সেই ঘাটতি পূরণের জন্য আমাদের সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা রয়েছে। শিক্ষার্থীদের রেমিডিয়াল ক্লাসেস করানোসহ নানা ধরনের পরিকল্পনা রয়েছে বলেও জানান তিনি।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন- চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক (ডিসি) অঞ্জনা খান মজলিশ, পুলিশ সুপার মো. মিলন মাহমুদ বিপিএম (বার), চাঁদপুর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর ড. মো. নাছিম আখতার, সিভিল সার্জন ডা. মো. শাখাওয়াত উল্লাহ, চাঁদপুর নৌ পুলিশ সুপার মো. কামরুজ্জামান প্রমুখ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে