মাগুরা থেকে নওয়াব আলী:
মাগুরার শালিখাতে দৃশ্যমান উন্নয়নে এলজিইডি – এর ভুমিকা শীর্ষে। উন্নয়নের বেশীর ভাগ জায়গায় এলজিইডির অবদান রয়েছে। শালিখার গুরুত্বপূর্ণ প্রায় সকল সড়ক পাকা করা হয়েছে।
মাঠ থেকে ফসল আনা, গ্রামের মানুষের প্রধান সড়কে উঠা অনেক সড়ক ইতিমধ্যে পাকা করা হয়েছে। ইমারত নির্মানে স্কুল, কলেজ,মসজিদ, মাদরাসা,মন্দির , জিও – এনজিও, সহ নিচু থেকে বহুতল ভবন নির্মানে অনেক ক্ষেত্রে প্রত্যক্ষ পরোক্ষভাবে এলজিইডির হস্তক্ষেপ রয়েছে।ব্রীজ, কালভাট, ড্রেন, ওয়াশ ব্লক তাদের অবদান রয়েছে।
শালিখা পার্ক সকল কাজ প্রায় এলজিইডির করা। ইমার্জেন্সি সড়ক মেরামত তাদের নতুন সংযোজন।
এ ছাড়া আর এমপি নারী শ্রমিক সারা বছর সড়কের পাশে মাটি দিয়ে মেরামত করে রাখে।
এব্যপারে শালিখা উপজেলা প্রকৌশলী(অঃদাঃ) মোঃ আব্দুল্লাহ আল কবির বলেন শালিখাতে  ১৯৯ কি.মি পাকা সড়ক রয়েছে। বরইল- সিমাখালী ভায়া বুনাগাতী সড়কের প্রায় ২৪ কোটি,সিমাখালী – সিংড়া ভায়া চতুর বাড়ীয়া সড়কে প্রায় ২৫ কোটি টাকা ব্যয়ে  সংস্কারের কাজ চলছে।
পিইডিপি প্রকল্প(৪) আওতায় ১৮ টি, এনএনজিপিএস প্রকল্পের আওতায় ৭টি ও জিপিএস প্রকল্পের আওতায় ৮ টি সরকারি প্রাইমারি স্কুলের নির্মান কাজ চলছে।পিইডিপি(৪) প্রকল্পের আওতায় ৯১ টি সরকারি প্রাইমারি স্কুলের সিমানা প্রাচীর নির্মান কাজ প্রক্রিয়াধীন।শরুশুনা খেওয়া ঘাটের ৯০ মিটার ব্রীজের কাজ শেষের দিকে।
সরকারের নির্দেশনা মোতাবেক এলজিইডির কর্মীবাহিনী সারাক্ষণ কাজ করে যাচ্ছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে