দর্পণ ডেস্ক : প্রয়াত বিশ্বনন্দিত সংগীত তারকা মাইকেল জ্যাকসনের বিরুদ্ধে একাধিকবার শিশু নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। তার উপর নির্মিত ডকুমেন্টারি ‘লিভিং নেভারল্যান্ড’-তে সেই নির্যাতনের কিছু চিত্র তুলে ধরা হয়েছে।

এ ডকুমেন্টারির বিরুদ্ধে মাইকেল জ্যাকসনকে হেয় করার অভিযোগে ১০০ মিলিয়ন ডলারের মামলা করা হয়েছে। সেই মামলা খারিজ করার জন্য বৃহস্পতিবার আদালতের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে ডকুমেন্টারিটি প্রচার করা সংস্থা এইচবিও।

মাইকেল জ্যাকসনের এস্টেটের দায়ের করা সেই মামলায় বলা হয়েছে, এইচবিও নেটওয়ার্কে গত বছর ‘লেভিং নেভারল্যান্ড’ নামে তথ্যচিত্র প্রচার হয়। যা ১৯৯২ সালের একটি চুক্তি লঙ্ঘন করেছে। এখানে জ্যাকসনের মতো পাবলিক ইমেজকে ভালোভাবে চিত্রায়ণ করা হয়নি।

তবে তাদের এই দাবি প্রথম থেকেই অস্বীকার করে আসছে এইচবিওর আইনজীবী দল। তারা এক বিবৃতিতে সম্পূর্ণ ঘটনাটিকেই ‘অযৌক্তিক’ বলে বর্ণনা করে মামলা থেকে এইচবিও’র মুক্তি চেয়েছে।

নেটওয়ার্কটির প্রতিনিধিত্বকারী অ্যাটর্নি থিওডোর বাউস্ট্রস বলেন, ‘অভিযোগটি আবারো খতিয়ে দেখা উচিৎ। এখানে কোনো নিয়ম ভঙ্গের কাজ করা হয়নি। এইচবিও কখনোই উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে কিছু করে না। এ মামলা খারিজ করে দেয়ার দাবি জানাই।’

প্রসঙ্গত, ‘লিভিং নেভারল্যান্ড’ হলো একটি ব্রিটিশ-আমেরিকান ডকুমেন্টারি ফিল্ম। এটি পরিচালনা করেছেন ব্রিটিশ চলচ্চিত্র নির্মাতা ড্যান রিড।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে