দর্পণ ডেস্ক : মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বড় ছেলে ডোনাল্ড ট্রাম্প জুনিয়র করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

ট্রাম্পপুত্রের মুখপাত্র বলেন, ডোনাল্ড এ সপ্তাহের শুরুতেই করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়েছেন এবং ফলাফল আসার পর থেকে নিজ কেবিনে কোয়ারেন্টিনে রয়েছেন।

শুক্রবার প্রেসিডেন্টপুত্রের ব্যক্তিগত মুখপাত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। খবর সিএনএনের।

ট্রাম্প জুনিয়র করোনায় আক্রান্ত হলেও তার শরীরে কোনো ধরনের উপসর্গ নেই। তিনি কোভিড-১৯ সম্পর্কিত সব ধরনের মেডিকেল পরামর্শ মেনে চলছেন বলেও জানিয়েছেন তার মুখপাত্র।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের ঘনিষ্ঠদের মধ্যে সবশেষ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলেন তার জ্যেষ্ঠপুত্র। এর আগে ডোনাল্ড ট্রাম্প নিজে, তার স্ত্রী মার্কিন ফার্স্ট লেডি মেলানিয়া ট্রাম্প, তাদের ছোট ছেলে ব্যারন, ট্রাম্পের চিফ অব স্টাফ মার্ক মিডোসসহ হোয়াইট হাউসের বেশ কয়েকজন কর্মকর্তা ও রিপাবলিকানদের নির্বাচনী প্রচারণা দলের একাধিক সদস্য করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হন।

ট্রাম্প জুনিয়রের প্রেমিকা কিম্বার্লি গিলফয়েলও করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়েছিলেন। প্রেমিকের সঙ্গে নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নিয়ে গত কয়েক মাস তিনি সারা দেশ ঘুরে বেড়িয়েছেন।

এদিকে, গত ৩ নভেম্বর মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ভোটগ্রহণের রাতে হোয়াইট হাউসের পার্টিতে ট্রাম্প জুনিয়রসহ উপস্থিত ছিলেন অন্তত ২৫০ জন অতিথি। তাদের প্রায় কারও মুখেই মাস্ক ছিল না। পরে অতিথিদের মধ্যে বেশ কয়েকজন করোনা পজিটিভ শনাক্ত হন, যাদের মধ্যে মার্ক মিডোস অন্যতম। এ ঘটনার পরপরই পার্টিতে অংশ নেয়া ব্যক্তিরা দ্রুত করোনা টেস্ট করান বলে জানা গেছে।

এর আগে, গত মাসে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ও ফার্স্ট লেডি মেলানিয়া। জানা যায়, ট্রাম্পের সঙ্গে এয়ার ফোর্স ওয়ানে করে ওহাইওতে গিয়েছিলেন তার অন্যতম উপদেষ্টা হোপ হিকস। এর কিছুদিন পরেই হিকস করোনা পজিটিভ শনাক্ত হন। সঙ্গে সঙ্গে কোয়ারেন্টাইনে যান ট্রাম্প ও মেলানিয়া। পরে তারাও করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানা যায়।

করোনায় আক্রান্ত ট্রাম্পকে একটি সামরিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে মাত্র তিনদিন চিকিৎসা নিয়েই ফের হোয়াইট হাউসে ফেরেন তিনি। তবে এরপর থেকেই ট্রাম্প প্রশাসনের একের পর এক কর্মকর্তা করোনায় আক্রান্ত হওয়ার খবর আসতে থাকে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে