দর্পণ ডেস্ক : বাংলা অভিনয় জগতের কিংবদন্তি সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। তার সর্বপ্রথম কাজ সত্যজিৎ রায়ের অপুর সংসার ছবিতে। ১৯৫৯ সালে ছবিটি নির্মিত হয়। তার আগে রেডিওর ঘোষক ছিলেন এবং মঞ্চে অভিনয় করতেন। ধীরে ধীরে তিনি সত্যজিৎ রায়ের অন্যতম পছন্দের অভিনেতা হয়ে উঠেছিলেন। তিনি সত্যজিৎ রায়ের সর্বাধিক ছবিতে অভিনয় করেছেন। মোট ১৪টি ছবিতে অভিনয় করার জন্য তাকে নিয়েছিলেন সত্যজিৎ রায়। তিনি সত্যজিৎ রায়ের পরিচালনায় সোনার কেল্লা এবং জয় বাবা ফেলুনাথ ছবি দুটিতে ফেলুদার ভূমিকায় অভিনয় করেছেন।
সত্যজিৎ রায় ছাড়াও তিনি মৃণাল সেন, তপন সিংহ, অজয় কর, তরুণ মজুমদার, ঋতুপর্ণ ঘোষ, গৌতম ঘোষসহ বহু বিখ্যাত পরিচালকের ছবিতে অভিনয় করেছেন। তার বিপরীতে নায়িকার ভূমিকায় অভিনয় করেছেন সুচিত্রা সেন, সাবিত্রী চট্টোপাধ্যায়, মাধবী চক্রবর্তী,শর্মিলা ঠাকুর, অপর্ণা সেন, সুমিত্রা মুখার্জি, ওয়াহিদা রহমান, তনুজাসহ বিশিষ্ট অভিনেত্রীরা। বেশ কয়েকটি ছবিতে তিনি উত্তম কুমারের সঙ্গে অভিনয় করেছেন। সেসব ছবিগুলির মধ্যে রয়েছে- ঝিন্দের বন্দী, স্ত্রী, অপরিচিত, যদি জানতেম। তার উল্লেখযোগ্য ছবিগুলির মধ্যে রয়েছে- সাত পাকে বাঁধা, চারুলতা, আকাশকুসুম, কোনি, গণদেবতা, সংসার সীমান্তে, অরণ্যের দিনরাত্রি অশনি সংকেত তিন ভুবনের পারে প্রভৃতি।
সিনেমা ছাড়াও তিনি বহু নাটক যাত্রা এবং টিভি ধারাবাহিক অভিনয় করেছেন। অভিনয় ছাড়া তিনি নাটক ও কবিতা লিখেছেন, নাটক পরিচালনা করেছেন। তার অভিনীত নির্দেশিত নাটক গুলির মধ্যে রয়েছেন-ফেরা, নাম জীবন, নীলকন্ঠ, রাজকুমার। তিনি একজন খুব উচ্চমানের আবৃত্তিকারও।
তিনি ২০০৪ সালে পদ্মভূষণ, ২০১২ সালে দাদাসাহেব ফালকে পুরস্কার পান। ২০১৭ সালে তাকে ফ্রান্স সরকার লিজিয়ন অব অনার দিয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে