দর্পণ ডেস্ক : দৌলতদিয়া ঘাটে যৌনপল্লিতে টানা পাঁচ দিন ছিলেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী নিপুণ আক্তার। আর সেখানে থেকে খুব কাছ থেকে দেখেছেন যৌনকর্মীদের জীবনযাপন। কিন্তু কেন তিনি সেখানে ছিলেন?
এমন প্রশ্নে উত্তরে নিপুণ বলেন, ‘চরিত্রের প্রয়োজনে সেখানে পাঁচ দিন থাকতে হয়েছে। যা উঠে আসবে “বীরত্ব” সিনেমার গল্পে। যা দেখলে দর্শক বুঝবেন, কেন আমি সেখানে ছিলাম।’ সাইদুল ইসলাম রানা পরিচালিত ‘বীরত্ব’ সিনেমাটি আগামী ১৬ সেপ্টেম্বর মুক্তি পাচ্ছে। আর গত শুক্রবার রাজধানীর একটি রেস্তোরাঁয় এর মুক্তি উপলক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সেখানে উপস্থিত সাংবাদিকদের পতিতালয়ে থাকার অভিজ্ঞতার কথা জানান জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত এই অভিনেত্রী।
নিপুণ বলেন, ‘সিনেমায় আমি একজন যৌনকর্মীর চরিত্রে কাজ করেছি। সিনেমায় তারই একটি অংশ উঠে আসবে।’ তিনি আরও বলেন, ‘আমরা দৌলতদিয়া ঘাটেই শুটিং করেছি। করোনার কিছুটা শেষের দিকে অক্টোবর মাসে কাজ শুরু হয়। এমন চরিত্র আগে কখনও করিনি, তাই চরিত্রটি অনেক চ্যালেঞ্জিং ছিল। পাঁচ দিন থাকার পর মোট ১৫ দিন ওখানে শুটিং করেছি। এটা অন্যরকম অভিজ্ঞতা। তাই হলে গিয়ে সিনেমাটি দেখার অনুরোধ জানাচ্ছি।’ ‘বীরত্ব’ সিনেমায় নিপুণ ছাড়াও অভিনয় করেছেন ইমন, নবগাত নিশাত নাহার সালওয়াসহ আরও অনেকে।

 

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে