দর্পণ ডেস্ক : অনেক বঞ্চনা, অবহেলা আর টিপ্পনীকে পাশ কাটিয়ে সাফ চ্যাম্পিয়ন হয়েছে বাংলার বাঘিনীরা। ফাইনালে নেপালকে ৩-১ ব্যবধানে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করেছে নারী ফুটবল দল। সোমবার রাত থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রশংসায় ভাসছেন সাবিনা-কৃষ্ণারা। ফুটবলার সানজিদা খাতুনের ম্যাচপূর্ব আবেগী পোস্টের ছবি দিয়ে অনেকে দাবি করেছেন, নারী ফুটবল দলকে বিমানবন্দর থেকে ছাদখোলা বাসে সংবর্ধনা দেয়া হোক।
সানজিদার আবেগ আর গণমানুষের আবেগ- দুটোতেই সাড়া দিচ্ছে কর্তৃপক্ষ। সাফজয়ী নারীদের ঘরে ফেরাটা রাঙাতে ছাদখোলা বাসেরই ব্যবস্থা করা হচ্ছে। সরকারের পরিবহন সংস্থা বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন করপোরেশন (বিআরটিসি) তাদের দোতলা একটি বাস এজন্য বরাদ্দ দিচ্ছে।
মঙ্গলবার (২০ সেপ্টেম্বর) সকাল থেকে বিআরটিসির মতিঝিল ডিপোর একটি ডাবল ডেকার বাসের ছাদ কাটা শুরু হয়। এই বাসের গায়ে নতুন করে চ্যাম্পিয়নদের ছবিযুক্ত বড় স্টিকার লাগানো হবে বলে জানা গেছে।
কিছুটা আক্ষেপ আর আবেগ নিয়ে নারী ফুটবল দলের খেলোয়াড় সানজিদা আকতার ফেসবুকে একটা স্ট্যাটাস দিয়েছিলেন সাফ ফুটবলের ফাইনালের আগে।
‌তিনি লিখেছিলেন, ‘ছাদখোলা চ্যাম্পিয়ন বাসে ট্রফি নিয়ে না দাঁড়ালেও চলবে, সমাজের টিপ্পনীকে একপাশে রেখে যে মানুষগুলো আমাদের সবুজ ঘাস ছোঁয়াতে সাহায্য করেছে, তাদের জন্য এটি জিততে চাই।’
গণমাধ্যমে প্রকাশের পর সানজিদার সেই ফেসবুক স্ট্যাটাস মুহূর্তের মধ্যে ভাইরাল হয়ে যায়।
নারী ফুটবল দল সাহসিকতা আর দৃঢ় প্রত্যয়ের খেলায় শুধু কাপ জেতেনি, জিতে নিয়েছে দেশের মানুষের ভালোবাসা। আর তাই তাদের ঘরে ফেরাটা রাঙানোর প্রক্রিয়া শুরু করে দিয়েছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।
এ ব্যাপারে বিআরটিসির চেয়ারম্যান মো. তাজুল ইসলাম বলেন, নারী ফুটবল দলকে সংবর্ধনা দিতে বিআরটিসির একটি ডাবল ডেকার বাসের ছাদ খুলে ফেলা হয়েছে। একইসঙ্গে আসনগুলো সরিয়ে ফেলারও কাজ চলছে। সরকারের পক্ষ থেকে সিদ্ধান্ত আসার পরই আমাদের মতিঝিল ডিপোতে এ কাজ শুরু করেছি। আজ রাতের মধ্যেই বাসটি প্রস্তুত হয়ে যাবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে