দর্পণ ডেস্ক : লন্ডনের সেন্ট জেমস প্যালেসে স্থানীয় সময় শনিবার সকালে এক ঐতিহাসিক অনুষ্ঠানে তৃতীয় চার্লস আনুষ্ঠানিকভাবে যুক্তরাজ্যের রাজা ঘোষিত হয়েছেন। স্থানীয় সময় শনিবার সকালে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। শনিবারের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে, বরিস জনসন, ডেভিড ক্যামেরনসহ কাউন্সিলের ২শ সদস্য। সদ্যপ্রয়াত রানির শোকে নামানো জাতীয় পতাকাগুলো ‘অ্যাকসেশন কাউন্সিল’ নামে এই প্রক্রিয়ার পর আবার এক দিনের জন্য স্বাভাবিক উচ্চতায় উড়বে। প্রথমবারের মতো এ অনুষ্ঠান টেলিভিশনে দেখানো হয়। রবিবার পর্যন্ত যুক্তরাজ্যজুড়ে আরো বিভিন্ন ঘোষণা আসবে। সেদিন সকালেই আবার জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত হয়ে যাবে। এর আগে শুক্রবার জাতির উদ্দেশে প্রথম ভাষণ দেন ব্রিটিশ রাজা তৃতীয় চার্লস। ভাষণে ব্রিটেন ও কমনওয়েলথভুক্ত দেশের জনগণের সেবা করার অঙ্গীকার করেন তিনি। রাজা তৃতীয় চার্লসের আগের দিন, শুক্রবার সন্ধ্যায় এক আবেগপূর্ণ প্রথম ভাষণে তার ‘প্রিয় মায়ের’ নিষ্ঠাপূর্ণ কর্মজীবন অনুসরণ করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। রাজা তার মা ৭০ বছরের রাজত্বকালে যেরকম ‘অটল ভক্তি’ দিয়ে জাতির সেবা করেছেন নিজেও তা অনুসরণের অঙ্গীকার করেন। চার্লস তার মা মারা যাওয়ার মুহূর্ত থেকেই রাজা হয়েছিলেন। কিন্তু রাজা বা রানির মৃত্যুর পর উত্তরাধিকারীর বিষয়ে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিতে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ‘অ্যাকসেশন কাউন্সিল’ অনুষ্ঠিত হয়। এদিকে রাজপরিবার থেকে জানানো হয়, ১০ দিনের রাষ্ট্রীয় মর্যাদা এবং শোক পালন শেষে ১৯ সেপ্টেম্বর রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া অনুষ্ঠিত হবে। লন্ডনের ওয়েস্টমিনিস্টার অ্যাবে এলাকার সেইন্ট পল গির্জার পাশে সমাহিত করা হবে রানিকে। সূত্র : বিবিসি।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে