দর্পণ ডেস্ক : ইংল্যান্ড জিতলেই টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় অস্ট্রেলিয়ার। জয়টা ইংল্যান্ডেরই হয়েছে। শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে তাদের সেমিফাইনাল নিশ্চিতের সঙ্গে ঘরের মাঠের বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। শনিবার সিডনি ক্রিকেট গ্রাউন্ডে শ্রীলঙ্কাকে ৪ উইকেটে হারিয়েছে ইংল্যান্ড। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেটে ১৪১ রান করে লঙ্কানরা। এই লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ২ বল আগে ৬ উইকেট হারিয়ে জয় নিশ্চিত করে ইংলিশরা। তাতে শেষ চারের টিকিট পেয়ে যায় জস বাটলাররা।
সুপার টুয়েলভে গ্রুপ-১-এর রানার্স-আপ হয়ে সেমিফাইনাল নিশ্চিত করেছে ইংল্যান্ড। এই গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন নিউজিল্যান্ড। দুই দলের পয়েন্ট সমান, তবে নেট রানরেটে ইংল্যান্ড (০.৪৭৩) থেকে এগিয়ে নিউজিল্যান্ড (২.১১৩)। তাদের সমান ৭ পয়েন্ট নিয়েও হতাশায় নিমজ্জিত অস্ট্রেলিয়া। বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হয়ে ঘরের মাঠের প্রতিযোগিতায় নামলেও সুপার টুয়েলভেই বাজলো বিদায়ঘণ্টা। শুধুমাত্র নেট রানরেটে (-০.১৭৩) পিছিয়ে থাকার কারণে।
টস জিতে ব্যাটিংয়ে নামা শ্রীলঙ্কার শুরুটা মন্দ ছিল না। উদ্বোধনী জুটিতে আসে ৩৯ রান। তবে কুশল মেন্ডিস ১৮ রানে আউট হওয়ার পর ধনাঞ্জয়া ডি সিলভা (৯) ও চারিথ আসালঙ্কা (৮) বিদায় নেন দ্রুত। তবে একাই লড়ে গেছেন পাথুম নিসানকা। এই ওপেনার ৪৫ বলে করেন ৬৭ রান। ২ চার ও ৫ ছক্কায় সাজানো তার ইনিংসটিতেই মূলত লড়াই করার পুঁজি পায় লঙ্কানরা। এছাড়া ২২ বলে ২২ রান করেন ভানুকা রাজাপাকশে।
ইংল্যান্ডের সবচেয়ে সফল বোলার মার্ক উড। এই পেসার ৩ ওভারে ২৬ রান দিয়ে নেন ৩ উইকেট। তবে কার্যকারী ছিলেন আদিল রশিদ। ৪ ওভারে মাত্র ১৬ রান দিয়ে ১ উইকেট পাওয়া এই স্পিনারের হাতেই উঠেছে ম্যাচসেরার পুরস্কার।
১৪৪ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে ৭.২ ওভারেই ৭৫ রান তুলে নেয় ইংল্যান্ড। বাটলার ২৫ বলে ২৮ ও অ্যালেক্স হেলস ৩০ বলে করেন ৪৭ রান। ওই শক্ত ভিতের পরও দ্রুত কয়েকটি উইকেট হারিয়ে ফেলায় ম্যাচে খানিকটা উত্তেজনা তৈরি হয়েছিল। তবে ওয়ান ডাউনে নেমে ম্যাচ শেষ করে তবে মাঠ ছেড়েছেন বেন স্টোকস। ৩৬ বলে ২ বাউন্ডারিতে তিনি অপরাজিত ছিলেন ৪২ রানে। চার মেরে জয় নিশ্চিত করা ক্রিস ওকস ৩ বলে অপরাজিত ৫ রানে।
ভানিন্দু হাসারাঙ্গা ৪ ওভারে ২৩ রান দিয়ে নেন ২ উইকেট। ধনাঞ্জয়া ডি সিলভা ৪ ওভারে ২৪ রানে পেয়েছেন ২৩ উইকেট। লাহিরু কুমারাও পেয়েছেন ২ উইকেট।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে