দর্পণ ডেস্ক : আনুষ্ঠানিকতায় ভরা দীর্ঘ শোক, শ্রদ্ধাজ্ঞাপন আর প্রার্থনাপর্ব অবশেষে ফুরিয়ে এলো। একাধিক প্রজন্মের কাছে ‘রানিমা’র আসনে থাকা দ্বিতীয় এলিজাবেথকে চিরবিদায় জানাল ব্রিটিশরা। দীর্ঘতম সময় ব্রিটিশ সিংহাসনে থাকা রানি নয়নসমুখ – এবং বহু অনুরাগীর হ্রদয়- থেকে ঠাঁই নিলেন ইতিহাসের পাতায়। যাজকদের প্রার্থনা, স্তুতিগান, দুই মিনিটের নীরবতা পালন আর বাদক দলের করুণ সুরের মধ্য দিয়েছে গতকাল সোমবার রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথকে শেষবারের মত বিদায় জানিয়েছে যুক্তরাজ্যের মানুষ। আর তাতে পরোক্ষে সামিল হয়েছে গোটা বিশ্ব। ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবিতে সারা বিশ্ব থেকে রাষ্ট্র ও সরকার প্রধানসহ দুই হাজার অতিথির উপস্থিতিতে শেষ হয় রানির রাষ্ট্রীয় অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া অনুষ্ঠান। এর পর রানিকে সমাহিত করার জন্য কফিন নিয়ে যাওয়া হয় উইন্ডসর ক্যাসেলের সেইন্ট জর্জেস চ্যাপেলে।
ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবি হলো সেই ঐতিহাসিক গির্জা, যেখানে ব্রিটেনের রাজা ও রানিদের মুকুট পরানো হয়। রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের বিয়ে ও রাজ্যাভিষেক অনুষ্ঠানও আয়োজিত হয়েছিল এখানেই।
গতকাল স্থানীয় সময় সকাল ৮টা থেকেই অতিথিরা আসতে থাকেন ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবিতে। অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন ডিন অব ওয়েস্টমিনস্টার ডেভিড হোয়েল। ক্যান্টারবারির আর্চবিশপ জাস্টিন ওয়েলবি ধর্মীয় বক্তব্য দেন। ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী লিজ ট্রাস পাঠ করেন ধর্মগ্রন্থ।
এরপর চলে আর্চবিশপদের প্রার্থনা। অনুষ্ঠানের বিভিন্ন পর্বে বাজতে থাকে রানির রাজ্যাভিষেক ও সর্বশেষ জন্মদিনে তৈরি স্তুতিগান। শেষকৃত্যের জন্যও রচিত হয় একটি গান। করুণ সুরের প্রথাগত ‘দ্য লাস্ট পোস্ট’ বাজানোর পর দুই মিনিট গির্জায় নীরবতা পালন করা হয়।
নীরবতা পালনের পর জাতীয় সংগীত আর বাদক দলের করুণ সুরে শেষ হয় অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া। এর মাধ্যমে শেষ হয় রানিকে বিদায় জানানোর আনুষ্ঠানিকতা। সমাহিত হওয়ার আগ পর্যন্ত বাকি কার্যক্রমে উপস্থিত থাকার কথা শুধু রাজপরিবারের সদস্যদেরই।
ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবি থেকে শেষ শোকযাত্রায় রানির কফিন নেওয়া হয় উইন্ডসর ক্যাসেলে। রাজপরিবারের একটি পর্বের সমাপ্তির সাক্ষী হতে পথের ধারে দাঁড়িয়ে ছিলেন হাজারো শোকার্ত মানুষ।
উইন্ডসরের পথে প্রতি মিনিটে বেজে ওঠা তোপধ্বনি জানান দিচ্ছিল সমাহিত হওয়ার পথে রানির আরেকটু এগিয়ে যাওয়ার খবর। বিগ বেন ঘড়িও প্রতি এক মিনিট পরপর ঘন্টা বাজিয়ে গেছে।
ধর্মীয় আনুষ্ঠানিকতার জন্য রানির কফিন নেওয়া হয় উইন্ডসর ক্যাসেলের সেন্ট জর্জেস চ্যাপেল গির্জায়। ক্যান্টারবারির আর্চবিশপ জাস্টিন ওয়েলবির আশীর্বাদ নিয়ে উইন্ডসরের ডিন ডেভিড কনার প্রার্থনাসভা পরিচালনা করবেন বলে কথা। এ পর্ব হওয়ার কথা বাংলাদেশ সময় সোমবার দিবাগত গভীর রাতে।
সেন্ট জর্জেস চ্যাপেল গির্জায় পৌঁছানোর পর রানির কফিন থেকে সরিয়ে নেওয়া হয় মুকুট, রাজকীয় প্রতীকী গোলক ও রাজদণ্ড। আরও কিছু আনুষ্ঠানিকতার পর রানির কফিন শেষ ঠিকানা রয়েল ভল্টে নামানোর কথা।
রাজা ষষ্ঠ জর্জ মেমোরিয়াল চ্যাপেল সমাধিতে রানিকে তাঁর প্রয়াত স্বামী ফিলিপের কবরের পাশে সমাহিত করার কথা। এসময় রাজদরবারের বাদক করুণ সুর বাজিয়ে রানিকে সমাহিত করার বার্তা দেবেন। একই বাদক প্রতিদিন সকালে বিশেষ সুর বাজিয়ে রানিকে সকাল হওয়ার বার্তা দিতেন।
সূত্র : বিবিসি, সিএনএন ও রয়টার্স।

 

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে